আজ থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনায় বাড়ি যাচ্ছে জবি শিক্ষার্থীরা

  জবি সংবাদদাতা  শনিবার | জুলাই ১৭, ২০২১ | ০৩:০৯ এএম

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) শিক্ষার্থীদের নিরাপদে বাড়ি পৌঁছে দিতে আজ শনিবার থেকেই বাস সার্ভিস চালু করছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। তার প্রেক্ষিতে শনিবার প্রথম দিনে রংপুর, রাজশাহী ও সিলেট এই তিনটি বিভাগীয় শহরে বিআরটিসির ভাড়া করা দ্বিতল বাস ও বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব একতলা বাস শিক্ষার্থীদের  পৌঁছে দিবে। রবিবার ও সোমবার বাকি বিভাগীয় শহরে শিক্ষার্থীদের পৌঁছে দিতে এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

শুক্রবার (১৬ জুলাই) রাতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ নির্দেশনায় এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়ছে, প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে অবশ্যই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রদত্ত বৈধ স্টুডেন্ট আইডি কার্ড সাথে রাখতে। যে সকল শিক্ষার্থীর বিশ্ববিদ্যালয় স্টুডেন্ট আইডি কার্ড নেই তারা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি রশিদের কপি বা ফটোকপি সঙ্গে নিয়ে আসবেন। আইডি কার্ড অথবা ভর্তি রশিদের কপি বা ফটোকপি ব্যতীত কোন অবস্থাতেই শিক্ষার্থীদেরকে বিশ্ববিদ্যালয়ের গাড়িতে যাতায়াতের সুযােগ প্রদান করা হবে না। বাসে যাতায়াতের সময় যদি কোন শিক্ষার্থী শৃঙ্খলা পরিপন্থী কোন আচরণ করে তাহলে তা বিশ্ববিদ্যালয় প্রচলিত আইনে শাস্তিযােগ্য বলে বিবেচিত হবে। গাড়ি চালকের সাথে কথাবার্তা ও কোন ধরনের নির্দেশনা প্রদান করা যাবে না। বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষের নির্ধারিত গাড়ির রুট পরিবর্তন করা যাবে না। শিক্ষার্থীদের ভারী বা বড় ব্যাগ না নিয়ে আসার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়। শিক্ষার্থীদেরকে ধৈৰ্য্য সহকারে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে সহযােগিতা করার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়। শিক্ষার্থী শুধুমাত্র নিজে একা ভ্রমণ করবেন। গাড়ি থেকে নিজ নিজ গন্তব্যস্থলে নামার ৫ মিনিট পূর্বে হেলপারকে অবহিত করবেন। জবি ক্যাম্পাস থেকে গাড়ি ছাড়ার পর কোন স্থান থেকে কেউ গাড়িতে উঠতে পারবে না। প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে নিজ নিজ ব্যাগ বা মােবাইল নিজ দায়িত্বে রাখতে হবে। ব্যাগ বা মােবাইল হারিয়ে গেলে কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না। গাড়ি থেকে নামার পূর্বেই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক বাসে প্রদত্ত উপস্থিতি সিট নিজে পূরণ করতে হবে। প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী অবশ্যই মাস্ক পরিধান করতে হবে।

শনিবারের বাস শিডিউলের ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন প্রশাসক আবদুল্লাহ্-আল্-মাসুদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে জাগো প্রতিদিনকে তিনি বলেন, "বিআরটিসির বাসের সংকট। রংপুর যাচ্ছে বিআরটিসির ৯টি দ্বিতল বাস। একটি অতিরিক্ত এক তলা বাস প্রয়োজন সাপেক্ষে ব্যবহার করা হবে। একতলা সব বাসই বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব পরিবহন। সিলেট যাচ্ছে ৬টি একতলা বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব বাস। রাজশাহী যাচ্ছে ১২টি একতলা নিজস্ব বাস। মোট ২৮টি বাস যাচ্ছে শনিবার। মোট ছাত্রছাত্রী যাচ্ছে ১৫০৭ জন। এর মধ্যে রংপুর যাবে ৭১২ জন, সিলেট ২৯৩ এবং রাজশাহী ৫০২ জন। সচরাচর বাস যেসব রাস্তা দিয়ে যায় সেদিক দিয়েই যাওয়া হবে। শিক্ষার্থীরা তাদের সুবিধামত নেমে যাবে।"

সকল বাস জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে সকাল ৮টায় ছেড়ে যাবে বলে জানানো হয়েছে।

শনিবার বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে রাজশাহী বিভাগের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া বাসের রুট ম্যাপ হলো: টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জ, পাবনা, নাটোর, চাপাইনবাবগঞ্জ, রাজশাহী। সিলেট বিভাগের ক্ষেত্রে, নারায়নগঞ্জ, নরসিংদী, কিশোরগঞ্জ (ভৈরব), বি-বাড়ীয়া, হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার, সিলেট, সুনামগঞ্জ।  রংপুর বিভাগের ক্ষেত্রে, বগুড়া, নওগাঁ, গাইবান্ধা, জয়পুরহাট, সৈয়দপুর, রংপুর, ঠাকুরগাঁও, পঞ্চগড়, নীলফামারী, দিনাজপুর, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম। 

রবিবার, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে  বরিশাল বিভাগের  উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া বাসের রুট ম্যাপ হলো: বরিশাল,ঝালকাঠি,পটুয়াখালী, বরগুনা, পিরোজপুর, ভোলা, শরীয়তপুর, মাদারীপুর। খুলনা বিভাগের ক্ষেত্রে প্রথম রুট- মানিকগঞ্জ, রাজবাড়ি, ফরিদপুর, মাগুরা, ঝিনাইদহ, চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর, কুষ্টিয়া, যশোর, খুলনা।  খুলনা বিভাগের ক্ষেত্রে দ্বিতীয় রুট- ফরিদপুর (ডাঙ্গা), নড়াইল, গোপালগঞ্জ, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা। 

সোমবার, ময়মনসিংহ বিভাগের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া বাসের রুট -গাজীপুর, ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, জামালপুর, শেরপুর, কুড়িগ্রাম (রাজিবপুর+রৌমারি) চট্রগ্রাম বিভাগের উদ্দ্যেশ্যে ছেড়ে যাওয়া বাসের রুট- মুন্সিগঞ্জ (গজারিয়া), চাঁদপুর, কুমিল্লা, লক্ষ্মীপুর, নোয়াখালী, ফেনী, খাগড়াছড়ি, চট্রগ্রাম, কক্সবাজার।

প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবং মাস্ক পরিধান করে সকাল সাড়ে সাতটার মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে উপস্থিত হওয়ার জন্য বিশেষ দুটি নির্দেশনায় বলা হয়েছে।