পরিবেশ রক্ষা ও বজ্রপাত রোধ করাই হবে আমাদের অঙ্গীকার : দেলোয়ার হোসেন

  জাগো প্রতিবেদক  শনিবার | জুন ২৬, ২০২১ | ০৫:৫০ পিএম

পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা ও সবুজায়নের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় বাংলাদেশের ২৫ ভাগ এলাকায় বনায়ন করা হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন ‌।

শনিবার বাংলাদেশ প্রকৌশলী বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এর মাঠে আওয়ামী লীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বন ও পরিবেশ উপ-কমিটির আয়োজনে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

দেলোয়ার হোসেন বলেন, পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা ও দেশমাতৃকার তাগিদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপকমিটি বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছে। 
দেশের ভারসাম্য রক্ষায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীরা ভূমিকা পালন করলে বাংলাদেশে একটি সুন্দর পরিবেশ গড়ে উঠবে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী বাংলাদেশে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা ও পরিবেশের আচ্ছাদ সৃষ্টি করতে দেশে ২৫ ভাগ এলাকায় বনায়ন করা হবে। সকলের সহযোগিতা পেলে শেখ হাসিনার নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে সক্ষম হবো। এখানে কবি  সাহিত্যিক, শিক্ষকবৃন্দ আছেন, আপনারা পরিবেশ সম্পর্কে জনগণকে সচেতন করে পরিবেশ রক্ষায় গাছ রোপন করার আহবান করলে খুব সহজে তা করা যাবে। পরিবেশ রক্ষায় আপনাদের সুদক্ষ পরামর্শ আমাদের পথচলা আরও সুন্দর করবে।

আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন  বলেন, সম্প্রতি বজ্রপাতে প্রাণহানি বেড়ে গেছে। পরিবেশ বিজ্ঞানীদের পর্রামশ অনুযায়ী বজ্রপাত প্রতিরোধে বড় গাছ দরকার, এই বড় গাছের মধ্যে একটা হলো তাল গাছ। আমরা বজ্রপাতের প্রভাব কমাতে সাত হাজাট ২শ তাল গাছের চারা রোপণ করবো। এ গাছের চারা রোপন করার পর  ১০ থেকে ১২ বছর পরে  সুফল পাবে দেশের মানুষ। বিনামূল্যে চারা বিতরণ করার পাশাপাশি গাছ লাগাতে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে।

এসময় বুয়েটের শিক্ষকদের হাতে বিভিন্ন ধরনের এক হাজার গাছের চারা তুলে দেন এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের নিয়ে চারা রোপণ কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়।

মুজিবর্ষ উপলক্ষে গত বছর এবং এবছর মিলিয়ে সারাদেশে তিন কোটি গাছের চারা রোপণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছেন ক্ষমতাসীন দলের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  এর মধ্যে 
গত বছর এক কোটি গাছ লাগানো 
হয়েছে। 

এসময় বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আবদুস সবুর, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সত্য প্রসাদ মজুমদার, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আব্দুল জব্বার খান ও অধ্যাপক মিজানুর রহমান প্রমূখ।