লালমোহনে একটি বিদ্যালয়ের জন্য একজন শিক্ষক

  মঙ্গলবার | সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২১ | ০৫:৩৯ পিএম

লালমোহন (ভোলা) সংবাদদাতা

ভোলার লালমোহনের ১৬৩ নং কুমারখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। বিদ্যালয়টির প্রথম শ্রেণি থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত সকল ক্লাসে পাঠদানের ভরসা মাত্র একজন শিক্ষিকা। প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত বিদ্যালয়টিতে মোট ছাত্র-ছাত্রী ১২৪ জন। ১৯৯১ সালে স্থাপিত হয় বিদ্যালয়টি। যা ২০১৩ সালে জাতীয়করণ করা হয়। বিদ্যালয়টির প্রথম থেকে ৪ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা ছিলেন। তবে পর্যায়ক্রমে ২০২০ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত কাজল রেখা নামের একজন শিক্ষিকা ছাড়া বাকি সকলে বিভিন্ন সময়ে অবসর গ্রহণ করেন। পরে ২০২১ সালের ১জানুয়ারী ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকার দায়িত্ব গ্রহণ করেন কাজল রেখা। এরপর থেকে পুরো বিদ্যালয়ের দায়িত্ব আসে তার ওপরে। এরমধ্যে করোনার কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও গত ১২ সেপ্টেম্বর বিদ্যালয় খোলার পর পুরো বিদ্যালয়ের পাঁচ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পাঠদান করাতে হচ্ছে কাজল রেখাকে। যাতে করে চরম বিপত্তিতে পড়েছেন তিনি। বিদ্যালয়টিতে নেই চতূর্থ শ্রেণির কর্মচারীও।

বিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী ও অভিভাবক জানান, একজন শিক্ষিকা দিয়ে পুরো স্কুলের এত শিক্ষার্থীকে পাঠদান করা সম্ভব না। শিগগিরই এখানে আরও শিক্ষকের পদায়ন দেয়া জরুরি।

বিদ্যালয়টির বর্তমান ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা কাজল রেখা বলেন, একা বিদ্যালয়ের এত শিক্ষার্থীকে পড়ানো ব্যাপক কষ্ট সাধ্য। তাই দ্রæত বিদ্যালয়টিতে আরও শিক্ষক পদায়ন দেয়া প্রয়োজন।

এব্যাপারে লালমোহন উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আক্তারুজ্জামান মিলন বলেন, আগে বিষয়টি জানাছিল না, এখন জেনেছি। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে সেখানে শিক্ষক পদায়নের ব্যবস্থা করা হবে।