দেড় বছর পর শিশু-কিশোরদের পদচারণায় আবারও মুখরিত শিক্ষাঙ্গণ

  রবিবার | সেপ্টেম্বর ১২, ২০২১ | ১২:০০ এএম

জাগো প্রতিবেদক

প্রায় দেড় বছর পর খুললো দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। শিশু-কিশোরদের পদচারণায় আবারও মুখরিত শিক্ষাঙ্গণ। শিক্ষার্থী-শিক্ষকদের পুনর্মিলনে স্কুল কলেজে চলছে উৎসবের আমেজ।

রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে রাজধানীর পথে পথে স্কুল ড্রেস পরিহিত শিক্ষার্থীদের দেখা মেলে। হাসিমুখে দল বেধে স্কুল কলেজের দিকে ছুটছে তারা। অভিভাবকরাও দীর্ঘদিন পর ফিরেছে পুরনো ডিউটিতে।

রাজধানীর বেশকিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ঘুরে দেখা গেছে , স্কুল-কলেজের গেটগুলোতে রাখা হয়েছে হাতধোঁয়ার ব্যবস্থা। শিক্ষার্থীদের স্বাগত জানাতে গেটেই দাঁড়িয়ে আছেন কিছু শিক্ষক। সেই সঙ্গে রাখা হয়েছে স্যানিটাইজারসহ করোনা প্রতিরোধের প্রাইমারি সবধরনের ব্যবস্থা। সামাজিক দূরত্ব মেনে প্রতি বেঞ্চে একজন করে শিক্ষার্থী বসানো হয়েছে।

 দীর্ঘদিন পর ক্লাসরুমে ফিরতে পেরে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিরাজ করছে বাড়তি উত্তেজনা। সবার মুখে লেগে আছে মিষ্টি হাসি।

 এদিন সামাজিক দূরত্ব মেনে স্কুলের প্রভাতি ও দিবা শাখার শিক্ষার্থীদের তিন শিফটে ক্লাস নেওয়া হচ্ছে সামসুল হক খান স্কুল এণ্ড কলেজ, ধনিয়া এ কে স্কুল এণ্ড কলেজ, যাত্রাবাড়ি আইডিয়াল স্কুল এণ্ড কলেজ, বর্ণমালা স্কুল এণ্ড কলেজ  ঘুরে দেখা গেছে, সকাল ৮টার আগে থেকেই স্কুলে আসছেন শিক্ষার্থীরা। স্কুলমুখী অভিভাবক এবং শিক্ষার্থীদের মুখে মুখে মাস্ক। অভিভাবকরা সন্তানদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ফটক পর্যন্ত পৌঁছে দিয়ে যাচ্ছেন। আর ফটকে শিক্ষার্থীদের স্বাগত জানাচ্ছেন শিক্ষকরা।
তবে যেসব শিক্ষার্থী মাস্ক না পরে স্কুলে এসেছেন, তাদেরকে শিক্ষার্থীরা মাস্ক পরিয়ে দিচ্ছেন। প্রবেশমুখে তাপমাত্রা মাপা হচ্ছে। একই সঙ্গে তাদেরকে দেওয়া হচ্ছে হ্যান্ড স্যানিটাইজার। শ্রেণিকক্ষেও শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখেই পাঠদান করানো হচ্ছে।
এ বিষয়ে কথা হয় সামসুল হক খান স্কুল এণ্ড কলেজ এর অধ্যক্ষ ড. মাহবুবুর রহমান মোল্লা সাথে।  তিনি বলেন, ‘উপস্থিতি বেশি হওয়ায় সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতে প্রভাতি ও দিবা শাখাকে দুইটি করে মোট চারটি শিফটে ভাগ করে পাঠদানের সিদ্ধান্ত হয়েছে। একটি শিফটের ক্লাস শেষ হলে অন্য শিফটের শিক্ষার্থী আসবে।

যাত্রাবাড়ি আইডিয়াল স্কুল এণ্ড কলেজ শিক্ষকদের সাথে ম্যানেজিং মিটিং'র ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন রিয়াজ।