বিএসএমএমইউ'র করোনা সেন্টারে চিকিৎসাসেবা নিয়েছেন ১৩ হাজারের অধিক রোগী

  জাগো প্রতিবেদক:  বৃহস্পতিবার | সেপ্টেম্বর ৯, ২০২১ | ১২:০০ এএম

করোনা মহামারির এই দুঃসময়ে দেশের অন্যতম চিকিৎসা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করেছে। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের করোনা সেন্টারে এপর্যন্ত ১৩ হাজারেরও অধিক রোগী করোনা চিকিৎসাসেবা নিয়েছেন।

এছাড়া বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব কোভিড ফিল্ড হাসপাতাল স্থাপন করে ৫৮০ রোগীর করোনা চিকিৎসাসেবা প্রদান করা হয়েছে।

১ লক্ষ ৮ হাজার ৭ শত ৪৯ জনের ক্রোনার টিকার প্রথম ডোজ ও  ৮০ হাজার ১ শত ৬৩ জনের দ্বিতীয় ডোজের টিকা প্রদান করা হয়েছে এই হাসপাতালে। পাশাপাশি করোনা সনাক্তকরণ পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে ১ লক্ষ ৮৬ হাজার ১ শত ৬০ জনের।

করোনা কালে আরও ১ লক্ষ ১৬ হাজার ৩ শত ৪১ জন রোগী চিকিৎসাসেবা নিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিভার ক্লিনিকে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রশান্ত মজুমদার এক বিজ্ঞতে জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের কেবিন ব্লকে স্থাপিত করোনা সেন্টারে ৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১৩ হাজার ৫৭ জন রোগী চিকিৎসাসেবা নি য়েছেন। ভর্তি হয়েছেন ৬ হাজার ৭ শত ১১ জন। সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন ৫ হাজার ৬ শত ৪১ জন। বর্তমানে করোনা সেন্টারে ভর্তি আছেন ৯৫ জন। আইসিইউতে  ভর্তি আছেন ১৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ৯ জন।  
এদিকে বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, করোনাকালে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব কোভিড ফিল্ড হাসপাতালে এ পর্যন্ত ৫৮০ জন রোগী চিকিৎসাসেবা নিয়েছেন। ৯ সেপ্টেম্বর সকাল ৮টা পর্যন্ত ভর্তি হয়েছেন ২৯২ জন রোগী। সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন ২০৭ জন। বর্তমানে ভর্তি আছেন ৪৬ জন রোগী। 
এদিকে বেতার ভবনের পিসিআর ল্যাবে গতকাল ৮ সেপ্টম্বর পর্যন্ত ১ লক্ষ ৮৬ হাজার ১ শত ৬০ জনের করোনা পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। সেই সাথে বেতার ভবনের ফিভার ক্লিনিকে ১ লক্ষ ১৬ হাজার ৩ শত ৪১ জন রোগী সেবা নিয়েছেন বলেও জানানো হয় বিজ্ঞপ্তিতে।

এদিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ডক্টরস ডরমিটরিতে গতকাল ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৩ শত ৮৪ জনসহ সিনোফার্মের ভেরোসেলের প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছেন ১৩ হাজার ৪ শত ৫৬ জন। গত ৭ সেপ্টেম্বর ২ জনসহ ফাইজারের ১০ হাজার ৬ শত ৩৬ জন প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছেন। গতকাল ৮ সেপ্টেম্বরে ২৯ জনসহ অ্যাস্ট্রাজেনেকার ৪৯ হাজার ৩ শত ৭২ জন এবং গত ২৯ আগস্ট পর্যন্ত মোট ৩৫ হাজার ২ শত ৭৫ জন প্রথম ডোজের মডার্নার টিকা নিয়েছেন। গতকাল ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত অ্যাস্ট্রাজেনেকা, ফাইজার, মডার্না ও সিনোফার্মসহ মোট ১ লক্ষ ৮ হাজার ৭ শত ৪৯ জন প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছেন। গতকাল ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দ্বিতীয় ডোজের অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা নিয়েছেন ৪৮ হাজার ৮ শত ৫৪ জন। গত ৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ফাইজারের দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিয়েছেন ৮ হাজার ৩ শত ৭৯ জন এবং গতকাল ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মডার্নার দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিয়েছেন ২২ হাজার ৯ শত ৩০ জন। মোট ৮০ হাজার ১ শত ৬৩ জনের দ্বিতীয় ডোজের টিকা প্রদান করা হয়েছে বলে এসব তথ্য বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।


এদিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ আজ বৃহস্পতিবার ৯ সেপ্টেম্বর এ ব্লক অডিটোরিয়ামে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসাসেবায় নিয়োজিত সম্মুখ সারির মহান যোদ্ধা চিকিৎসকদের উদ্দেশ্যে তাদের সাহস ও মনোবল বৃদ্ধির জন্য মূল্যবান বক্তব্য রাখেন বলেও জানানো হয় বিজ্ঞপ্তিতে।