খালি পেটে এলাচ খেলে শরীরের যে উপকার হয়

লাইফস্টাইল ডেস্ক    

সবার রান্নাঘরেই এলাচ থাকে। ছোট্ট এই এলাচ খাবারের সুবাস বাড়িয়ে তোলে। এজন্য কোনো কোনো রান্নায় ব্যবহার করা হয় এই মসলা। এ ছাড়া পিঠা-পায়েসে এলাচ ব্যবহার করা হয়। 

আবার মসলা চায়ের অন্যতম এক উপকরণ হলো এলাচ। শারীরিক নানা সমস্যার সমাধান আছে এলাচে। ছোট্ট হলেও একটি এলাচের কতটা গুণ চলুন তা জেনে নিই :

>> আদার স্বাস্থ্য উপকারিতা সম্পর্কে সবারই ধারণা আছে। জানেন কি, আদার মতো এলাচও পেটের নানা সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে কার্যকরী এক উপাদান।

অ্যাসিডিটির সমস্যা দূর করা থেকে শুরু করে পরিপাকতন্ত্র সক্রিয় রাখতে ও হজম বাড়াতে এলাচ অনেক উপকারী। এ ছাড়াও বুক জ্বালা, বমি বমি ভাব থেকে মুক্তি পেতে মুখে একটি এলাচ রাখুন।

>> শরীরের ক্ষতিকর টক্সিনও দূর করতে পারে এলাচ। যাদের ত্বকে এরই মধ্যে বয়সের ছাপ পড়তে শুরু করেছে, তারা নিয়মিত সকালে খালি পেটে এলাচ ভেজানো পানি বলিরেখা কমতে শুরু করবে।

>> শ্বাসকষ্টের সমস্যায় যারা ভোগেন তারা মধু, লেবুর রস ও গরম পানিতে একটি এলাচ মিশিয়ে পান করলেই উপকার পাবেন। এমনকি যারা হুপিং কাশি ও ফুসফুস সংক্রমণের মতো সমস্যায় ভুগছেন তাদের জন্যও ছোট্ট এই মসলা খুবই উপকারী।

>> এলাচ হাঁপানি ও হৃদরোগ নিরাময় করে। কারণ এটি রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারে। এ ছাড়াও এলাচ রক্তসঞ্চালনেও সহায়ক। প্রতিদিন এলাচ খেলে রক্তের ঘনত্ব ঠিক থাকে।

>> মুখে বেশি দুর্গন্ধ হলে একটি এলাচ খান। এলাচ মুখের দুর্গন্ধ সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়াগুলো ধ্বংস করে। এ ছাড়াও মাড়ির ইনফেকশন, মুখের ঘা’সহ দাঁত ও মাড়ির নানা সমস্যা থেকে রক্ষা করে এলাচে থাকা পুষ্টিগুণ।

>> গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়মিত এলাচ খেলে ক্যানসারও প্রতিরোধ করতে পারবেন। এলাচ দেহে ক্যানসারের কোষ গঠনে বাঁধা প্রদান করে থাকে।

>> পেশিতে টান ধরার সমস্যা থেকেও রক্ষা করে ছোট্ট এক টুকরো এলাচ। এক্ষেত্রে ছোট বা বড় এলাচ গরম পানিতে ফুটিয়ে খেলে দ্রুত স্বস্তি মিলবে।

>> এলাচ চা মাথাব্যথাসহ মানসিক চাপ দূর করে মুহূর্তেই স্বস্তি দেয়। এজন্য গরম পানিতে চা পাতা, এলাচ গুঁড়া ও মধু দিয়ে ফুটিয়ে তৈরি করুন এলাচ চা।

>> অ্যান্টি অক্সিডেন্টে ভরপুর হলো এলাচ। সর্দি-কাশির সমস্যা থেকে শুরু ত্বকের বিভিন্ন সমস্যায় অ্যান্টি অক্সিডেন্ট বেশ উপকারী। তাই নিয়মিত এলাচ খেলে শারীরিক নানা সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন।